Saturday, June 11, 2011

হাওয়া বয় শনশন, তারারা কাঁপে

প্রেমেন্দ্র মিত্র লোকটাকে আমি খুবই ভালো পাই। কেবল ঘনাদা বা মেজোমামার জন্যেই নয়, ছোটোদের জন্যে আশ্চর্য কারুকাজে ভরা সব গল্প লিখে গেছেন তিনি। তাঁর কবিতা খুব একটা পড়া হয়নি, কিন্তু সেখানেও কিছু মাণিক্য রেখে গেছেন ভদ্রলোক। "সূর্য কাঁদলে সোনা"র মতো শ্বাসরূদ্ধকর মৌলিক সিনেমেস্ক বাংলা থ্রিলার যিনি লিখেছেন, তিনিই জং-এর মতো ভরাট, ছন্দেবাঁধা রোমান্টিক কবিতা লিখে গেছেন, ভাবলে শ্রদ্ধা বাড়ে।

ঘুমের অভাবে খুবই কাহিল অবস্থা আমার, রাতে তিন ঘন্টার বেশি ঘুমাতে পারি না, সারাদিন ঝিমাই। আজ একটা কাজ শেষ করার পণ নিয়ে বসেও কেশার্ধপরিমাণ কাজ এগোতে পারলাম না। তিতিবিরক্ত হয়ে ভাবলাম গিটার থেকে একটু ধুলো সরাই। কবিতাটা কেন যেন টোকা দিলো মাথায়, চেষ্টা করলাম একটা সুর বসাতে।


হাওয়া বয় শনশন by royesoye


[]

1 comment:

  1. লেখা পড়ার লোভে ক্লিক করেছিলাম। পড়া শেষে নেহাতই অভ্যাসের বসে অডিও তে টোকা দিলাম। কারনটা বলি, জং কবিতাটি শম্ভুমিত্রের কন্ঠে আমার অসাধারণ লাগে। মাঝে মাঝেই শুনি। তাই ভেবেছিলাম এ কবিতার উপর যতই সুর বসানো হোক আমার ভাল লাগবে না। এখন মনে হচ্ছে না শুনলে মিস করতাম। কিন্তু গানটা হঠাৎ করেই শেষ হয়ে গেল। ছোট গল্পের মত, শেষ হলো কিন্তু রেশ রয়ে গেল।

    ReplyDelete

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।