Friday, October 01, 2010

প্রায়নেভারেস্ট পোস্ট: মুসা ইব্রাহীমের এভারেস্টবাণিজ্য

মানুষের সামনে প্রশ্নাতীত কোনো প্রমাণ উপস্থাপন না করে এভারেস্ট জয়ের দাবি নিয়ে দেশে ফিরেই মুসা নিজেকে পরিচয় দিচ্ছেন মোটিভেটর হিসাবে। নিচে দেখুন তার টুইটার অ্যাকাউন্টের স্ক্রিনশট।

Musa_twitter2


এই মোটিভেশনবাণিজ্যের স্বরূপ জানতে পারি একটি বড় কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানের উচ্চপদস্থ এক কর্মকর্তার কাছ থেকে। তিনি তাঁর ও তাঁর প্রতিষ্ঠানের নাম গোপন রাখার শর্তে সাক্ষাৎকারে সম্মত হন। তিনি জানান, মুসা ইব্রাহীমকে তাঁদের প্রতিষ্ঠানের একটি অনুষ্ঠানে তাঁরা আমন্ত্রণ জানানোর জন্যে যোগাযোগ করেন প্রথম আলোর সাংবাদিক পল্লব মোহাইমেনের সাথে। দৃশ্যত পল্লব মোহাইমেন মুসার মুখপাত্র হিসেবে কাজ করছেন। পল্লব নানারকম অজুহাত দিয়ে জানান, মুসা ব্যস্ত, তার এসব অনুষ্ঠানে যোগ দেবার সময় নেই। তিনি তখন অন্য আরেকজনের মাধ্যমে মুসার সাথে যোগাযোগ করে জানতে পারেন, মুসা কোনো কর্পোরেটের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকলে ৫ লক্ষ টাকা দাবি করেন, তবে তাদের জন্যে সে তার দর ২ লক্ষ টাকায় নামাতে রাজি আছে। অনারারিয়াম হিসেবে এত টাকা অযৌক্তিক বিবেচনা করে তাঁরা একজন খ্যাতিমান অভিনেতাকে আমন্ত্রণ জানান যিনি বিনা পারিশ্রমিকে সেই অনুষ্ঠানে আসেন।

স্মর্তব্য যে পল্লব মোহাইমেন প্রথম আলোর উপ-ফিচার সম্পাদক, এবং বিভিন্ন আয়োজনে তিনি মুসাকে সক্রিয় সহযোগিতা করে আসছেন [১]।

সাক্ষাৎকারের অডিও যোগ করা হলো।

Get this widget | Track details | eSnips Social DNA


শুধু তা-ই নয়, সিলেটের একটি সমাজসেবী প্রতিষ্ঠান মুসাকে আমন্ত্রণ জানায় তাদের একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য রাখতে। মুসা তাদের জানান, তিনি ৭-৮ জন বন্ধুসহ আসবেন, তাদের আতিথেয়তার পাশাপাশি তাকে পঞ্চাশ হাজার টাকা দিতে হবে। সমাজসেবী প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এতে অস্বীকৃতি জানানোয় তিনি আর অনুষ্ঠানে যাননি।

এই সমাজসেবকের সাথে ফেসবুকে যোগাযোগ করার পর তিনি জানান:

Thanks for your concern. I was indeed looking for such an initiative.

I heard from several sources that Musa demands money for attending programs. ***, President, *****, (known to *) also alleged that Musa demanded Tk. 50,000 to honour his invitation.

Still, as I was in doubt whether it's possible, I asked a friend to contact Musa and invite him as Chief Guest in our club's installation ceremony in last July. My friend reported me nearly after one week that Musa will visit Sylhet for three days along with family and 8-10 friends. I'll have to sponsor the whole visit and give him an honorarium of Tk 50,000/-. I, instantly, rejected it telling him that I can host him and his family only in Sylhet cordially and I can't give any money.

(নামগুলো বক্তার অনুরোধে গোপন রাখা হলো)


এভারেস্ট জয়ের দাবি করে যে এভারেস্টবাণিজ্য চলছে নিভৃতে, সেটি রাজস্ব বিভাগের গোচরীভূত হওয়া উচিত বলে মনে করি। এভারেস্টবাণিজ্যের আরো কয়েকটি উদাহরণ ভবিষ্যতে উপস্থাপন করার ইচ্ছা পোষণ করি।


তথ্যসূত্র:

[১] "সুন্দরবনের পক্ষে প্রচারণা চালাবেন মুসা ইব্রাহীম", দৈনিক প্রথম আলো

2 comments:

  1. মূসা ইব্রাহীম এভারেস্ট জয়ের সংবাদ পাওয়ার আগেই তাকে টুইটারে ফলো করতাম। তখন তার 'ফলোয়িং' এর তুলনায় 'ফলোয়ার' ছিলো অর্ধেকরও কম, ৪০-৫০ জনের মতো। সেসময় তার Bio তে 'মটিভেটর' শব্দটা দেখেছি বলে মনে পড়ছেনা। যখন তার এভারেস্ট জয়ের কথা শুনি, তখন তার টুইটারে প্রোফাইলে গিয়ে "Eat Everest, Drink Everest, Sleep Everest: all Everest" এই কথাটা পড়ে খুব আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলাম। এই টুইটটা তিনি এভারেস্টে যাওয়ার আগে করেছেন।
    পঞ্চাশ হাজার টাকা তো খুব বেশি চান নাই। সিলেটে বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজনদের নিয়ে ঘুরাঘুরি করবেন, হাত খরচের একটা ব্যাপার আছে না! ;)

    ReplyDelete
  2. বন্ধুবান্ধবেরা কেন ব্লগে ব্লগে মুসার পশ্চাৎদেশ রক্ষা করতে লেগে আছেন তার একটা কারণ বোঝা গেল। আহা বিনি মাগনা ঘুরতে কে না ভালবাসে!

    ReplyDelete

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।