Monday, August 16, 2010

মৃণাল, আপনি একজন বীর

আমার আলমা মাটার, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মৃণাল একজন বীর। তাকে আমি চিনি না, সেও চেনে না আমাকে, তবুও এই কথা বলছি।

প্রকৌশল প্রকল্প উপস্থাপন করতে গিয়েছিলো মৃণাল, প্রধান অতিথি ছিলো ঘৃণ্য আলবদর মইত্যা রাজাকার। সবাইকে হতভম্ব করে দিয়ে মৃণাল সবার সামনে বলেছিলো, "এই লোককে আমি আমার প্রজেক্ট দেখাবো না, যা করে করুক।"

কয়জন পেরেছে রাজাকারদের মুখের ওপর এ কথা বলতে? এত প্রগতিশীলতা কপচানো প্রথম আলো পত্রিকার সাংবাদিকদের দেখি অফিসে নেড়ির পালের মতো রাজাকারদের ঘিরে বসতে আর দাঁড়াতে। মৃণাল পেরেছে।

সেই মৃণালকে নিজের কাছে ছোটো হয়ে যেতে হয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পাণ্ডাদের দাপটে। পনেরোই অগাস্ট জাতীয় শোক দিবসে নবাগত '০৯ ব্যাচের ছাত্রদের নিয়ে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে মিছিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। মৃণাল এই গাজোয়ারির প্রতিবাদ করে ফেইসবুকে স্ট্যাটস দিয়েছিলো। ছাত্রলীগের পাণ্ডারা [যাদের মারপিটের কারণে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় পাঁচ সপ্তাহ বন্ধ ছিলো বলে অনেকে অভিযোগ করেছেন] এসে মৃণালকে শাসিয়ে গেছে, স্ট্যাটাস না সরালে খবর আছে বলে।

মৃণাল স্ট্যাটাস সরায়নি।

পরদিন তারা মৃণালকে হলের বাগানে ডেকে নিয়ে জানিয়েছে, ব্যাপারটা কেবল হলের রাজনীতিতেই সীমাবদ্ধ না-ও থাকতে পারে। যদি হলের বাহিরে গড়ায়, বহিরাগতরা ঢুকে মৃণালকে পেটাবে যদি মৃণাল স্ট্যাটাস না সরায়। তখন কেউ তাকে বাঁচাতে পারবে না। শিক্ষকদের কাছে অভিযোগ করেও কিছু হবে না। কারণ তখন দায়টা বহিরাগতদের, বুয়েটের আর নয়।

মৃণাল অবশেষে স্ট্যাটাস সরিয়েছে। যে বীর মৃণাল নিজামির মতো একটা ঘৃণ্য নরকের কীটকে গোটা পৃথিবীর সামনে স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলো যে সে একটি কীট বৈ অন্য কিছু নয়, সেই মৃণালকে তার নিজের কাছে ছোটো করে দিলো ছাত্রলীগের কয়েকটা পাণ্ডা।

মৃণালের এই অপমানের কথা আমি জানতে পেরেছি তার বন্ধুদের কাছে। এবং আমি অনুভব করছি, মৃণালের এই অপমান আমারও অপমান।

মৃণাল, আপনি ছোটো হবেন না নিজের কাছে। সিনিয়র ভাই হিসেবে বলতে চাই, আপনি আপনার সময়ের অনেকের চেয়ে অনেক উঁচু।

মৃণালের পাশে এসে যদি আমরা দাঁড়াতে না পারি, একদিন আমরা সবাই সজলনয়নে একা ঘরে বসে ছিঁড়ে ফেলবো আমাদের লেখার খাতা। কেউ সেদিন আমাদের পাশে এসে দাঁড়াবে না।

21 comments:

  1. সবজান্তা16 August, 2010

    খবরটা শুনে খুব একটা অবাক হইনি। বুয়েটে ছাত্র রাজনীতির মধ্যে বিশেষত ছাত্রলীগের মধ্যে যে ব্যাপক পরিমাণে নোংরামি, ইতরামি শুরু হয়েছে অনেক বছর পর, আমাদের ব্যাচের ছাত্রদের হাত ধরেই তার শুরু।

    আমি গর্বিত আমি যে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে, যে বিভাগ থেকে পাস করেছি, মৃণালও সেখানেই পড়ছে। বন্ধুর রুমমেট হওয়ার সুবাদে মৃণালের মুখটিও চিনতাম।

    ছাত্র রাজনীতির পাণ্ডাদের কাছ থেকে এর চেয়ে বেশি কিছু আশা করি না, তাই হতাশ হই নি। বরং গর্বিত হয়েছি, এই বৈরী সময়েও মৃণালের মতো কেউ হাল ধরে আছে।

    ReplyDelete
  2. aha........... ajke amar ki anondo hosse........... ami mrinaler roomamte silam BUET e.......... I am Proud of You MRINAL............

    ReplyDelete
  3. "মৃণাল, আপনি ছোটো হবেন না নিজের কাছে। সিনিয়র ভাই হিসেবে বলতে চাই, আপনি আপনার সময়ের অনেকের চেয়ে অনেক উঁচু। "

    ReplyDelete
  4. আমি মৃণালকে চিনি না, তবে তার সাহসে মুগ্ধ! আমি জানি এখানে থেকে কিছুই করতে পারবো না, তবে চেষ্টা করবো কিছু, এটা সত্য। আমি বুয়েট বন্ধের ব্যাপারে অনেক ধরনের কথা শুনেছি! এবং সবগুলোই ভিন্ন ভিন্ন!

    ReplyDelete
  5. কঠঠিন! মৃণাল এর নিজামীকে অস্বীকৃতি জানানোর ব্যাপারটা কবেকার? কোথায় হচ্ছিলো অনুষ্ঠানটা?

    ReplyDelete
  6. রাশেদ17 August, 2010

    আওয়ামী লীগের কাছে এর থেকে বেটার কিছু আশা করাটাই বোকামি। শুধু একটা প্লাস পয়েন্ট আছে যে এরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করার কথা অ্যাটলিস্ট বলছে। এছাড়া টেন্ডারবাজি থেকে বাকি সব কিছুই তো আগের মতোই মনে হয়, নির্বাচনের পরপর সহিংসতা না হওয়াটা বাদ দিলে।

    ReplyDelete
  7. আমি ০৯ ব্যাচ, ওনাকে হয়ত চিনিও না। কিন্তু শ্রদ্ধা তাকে করতেই হয়। এই ঘটনা থেকে একটু প্রেরণা নেবার চেষ্টা করছি...

    ReplyDelete
  8. রাজনীতি নিয়ে কী অসম্ভব নোংরামী বাংলাদেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ে!

    মৃণাল, আপনি বিচলিত হবেন না। রাজনীতির নাম ভাঙানো এইসব পাণ্ডাদের গন্তব্যের পরিধি কেবল মিছিল মিটিং আর সত্যিকার সাহসী কাউকে শাসানোর মধ্যেই। এদেরকে আমরা মনে রাখবো রাজনৈতিক পাণ্ডা হিসেবেই। কিন্তু মৃণালকে আমরা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবো তাঁর কেবল এবং কেবলমাত্র ঐ একটি কাজের মাধ্যমেই। আপনি নিজামীর মতো কুখ্যাত ঘৃণিত শুয়োরটিকে জনসন্মুখে জুতোপেটা করেছিলেন। যেটা করার ক্ষমতা এইসব চুনোপুটি, ক্ষমতালোভী রাজনৈতিক পাণ্ডাদের কোনোকালেই হবে না।

    ReplyDelete
  9. মাঝে মাঝে মনে হয় জন্মই মোদের আজন্ম পাপ।

    ReplyDelete
  10. নবীনদের নিয়ে ছাত্রদল আর ছাত্রলীগের এই গাজোয়ারী রাজনীতি বুয়েটে অতি প্রাচীন। আমি বলতে পারি আজ থেকে বিশ বছর আগেও ছিল। নতুন ব্যাচ হলে উঠলেই এই দল দুটো তাদের হল কমিটির সদস্যদের নামের লিস্ট ঝুলায় যেখানে নবাগত সব ছাত্রদের নাম তাদের অনুমতি ছাড়াই বিভিন্ন পদে দেখানো হয় (বিশেষতঃ সদস্য)। মজার ব্যাপার হচ্ছে একই নবীনের নাম ছাত্রদল আর ছাত্রলীগ উভয়ের কমিটিতে দেখা যায়। ১৯৯২ সালে সোহরাওয়ার্দী হলে এই ব্যাপারের প্রতিবাদ করতে গিয়ে ছাত্রদলের সোনার ছেলেদের হাতে অল্পের জন্য অপদস্থ হওয়া থেকে বেঁচেছিলাম। আমি অপদস্থ হইনি ঠিকই কিন্তু বুয়েটের ছাত্ররাজনীতিতে এমন আরো গাজোয়ারী ব্যাপার আছে, নবীন-প্রবীনদের অপদস্থ হবার ব্যাপার আছে।

    ReplyDelete
  11. Really a brave man both of ur.. I appreciate ur views and always be with u.

    ReplyDelete
  12. mrinaler jonno shroddha..:)

    ReplyDelete
  13. মাথা হেঁট হয়ে গেল......

    ReplyDelete
  14. শেয়ার দিলাম হিমু দা।

    ReplyDelete
  15. আমি ০৭ ব্যাচ এবং মৃণাল ভাই এবং আমি একই ডিপার্টমেন্ট এ পড়ি।ভাইয়ার সাথে সরাসরি কোন পরিচয় নেই,তবে ভাইয়াকে আমি চিনি।
    ভাইয়া, আপনি আপনার মানবিক দায়িত্ববোধের যে পরিচয় দিয়েছেন,বোধ করি মানুষ হিশেবে প্রত্যেকেরই আমাদের তাই দায়িত্ব। আপনার নিজামী বা ছাত্রলীগের এই গাজোয়ারির প্রতিবাদ আমি আমার নিজের মধ্যে খুব বেশি উপলব্ধি করি বিধায় আপনার এই ঘটনাটি আমাকে খুব নাড়া দিয়েছে।
    ছাত্রলীগের এইসব তথাকথিত নেতাদের যাচ্ছেতায় আর অযৌক্তিক কাজগুলোর সরাসরি কোন প্রতিবাদ করতে পারিনা বলে নিজের মধ্যে একটা দায়বদ্ধতা অনুভব করি।
    যুক্তিগত যেকোন প্রতিবাদী বিষয়ের সাথে আমিও কণ্ঠ উঁচিয়ে আছি।

    ReplyDelete
  16. Shopno dekhi....lokkho, koti koti mrinal er....

    ReplyDelete
  17. যতদূর মনে পড়ে নিজামীর ঘটনাটা IDEB তে ছিল এবং ২০০৯ এর প্রথম দিকে কোনো এক সময়ে

    ReplyDelete
  18. বুয়েট ছাত্রলীগকে আগেও দেখেছি '০৭ ব্যাচের সোহরাওয়ার্দী হলের এক ছাত্রকে পেটাতে...তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল...ছেলেটি ছাত্রলীগের অপকর্ম তুলে ধরে এমন একটি ফেসবুক গ্রুপের Administrator ছিল। খুব ভালো লাগে যখন ভাবি আমি আর মৃনাল বা তার মত ছেলেদের সাথে পড়ি। আবার মাথা হেঁট হয়ে যায় যখন ভাবি ছাত্রলীগ নামধারী এসব পাতিমাস্তান গুলোও বুয়েটে পড়ে।

    ReplyDelete
  19. স্যালুট জানাই তাকে!

    ReplyDelete
  20. প্রকৃতিপ্রেমিক04 September, 2010

    লেখাটি সচলায়তনে দিলে আরো বেশী মানুষ এই বীর মানুষটি সম্পর্কে জানতে পারতো।

    ReplyDelete

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।