Sunday, June 13, 2010

পাকিস্তানীদের মধ্যে যারা খানকির পোলা, শুয়োরের বাচ্চা বা মাদারচোদ নয়

আমি কিছুদিন আগে একটা সংবাদ পড়ে অদম্য ক্রোধের বশে একটা পোস্ট লিখেছিলাম। পোস্টের শেষে লিখেছিলাম, পাকিস্তানী খানকির পোলাদের মায়রে চুদি। এটা পড়ে আমার অনেক বন্ধু ও সহব্লগার ক্ষেপে গেলেন।

যেসব যুক্তি এসেছে, সেগুলো হচ্ছেঃ

১. এটি পুরুষতান্ত্রিক শভিনিজমের অসুস্থ প্রকাশ [এরা ধরে নিয়েছেন আমি বয়স্কা কোনো পাকিস্তানী নারীর সালোয়ারের ভেতরে ঢোকার জন্যে উত্তেজিত]

২. মুক্তিযোদ্ধারা মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিদের গালি দেয়নি, অতএব এখন আমাদের দেয়ার প্রয়োজন নেই [মুক্তিযুদ্ধের সময় মুক্তিযোদ্ধারা গালি দিয়েছেন কি দেন নাই সেটা আমরা কীভাবে জানবো? গালির কথা কি কেউ বইতে লেখে?]

৩. সকল পাকিস্তানীই যুদ্ধাপরাধে শামিল হয়নি বা সমর্থন দেয়নি

৪. গালাগালি করা ভালো নয়


প্রথম দু'টি যুক্তি আমি গ্রহণ করতে পারছি না। শেষ দু'টি যুক্তির মধ্যে তৃতীয়টি নিয়ে এই পোস্ট। চতুর্থটি নিয়ে সবিস্তারে কথা বলার সময় পাচ্ছি না, পরে কখনো লিখবো।

পাকিস্তানীরা কি সকলেই খানকির পোলা? সবাই কি মাদারচোদ? সবাই কি হ্যাটামারানির ছেলে [বা মেয়ে]? নিশ্চয়ই নয়। সুরুচিবান, সুশিক্ষিত, বিবেকসম্পন্ন পাকিস্তানী অবশ্যই আছেন। পাকিস্তানীদের গালি দিলে তাদের ঘাড়েও গিয়ে গালিটা পড়ে।

কিন্তু গুটিকয়েক ব্যতিক্রম দেখিয়ে পাকিস্তানীদের কি গালি থেকে বঞ্চিত করা যায়?

আমি তাই প্রস্তাব করছি, অ-খানকিরপোলা, অ-মাদারচোদ পাকিস্তানীদের একটি তালিকা তৈরি করার। আমরা এঁদের নাম দিতে পারি Those we do not speak ill of । এই তালিকায় একশো থেকে দুইশো পাকিস্তানীকে পাওয়া যাবে বলে আমি বিশ্বাস করি। এই তালিকা নির্মাণের পর TWDNSIO-কে বাঁচিয়ে নিশ্চিন্তে বলতে চাই, পাকিস্তানী খানকির পোলাদের মায়রে চুদি।

সংবাদের লিঙ্কসহ মন্তব্যে এঁদের নামগুলো জানিয়ে গেলে বাধিত হবো। যাঁরা এরসাথে একমত নন, তাঁদের কোনো মন্তব্য করার প্রয়োজন নেই।

4 comments:

  1. ১. ফয়েজ আহমেদ ফয়েজ [কবি]
    ২. নাসিম আখতার [নেত্রী, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি]
    ৩. শামিম আশরাফ মালিক [পাকিস্তান কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য]
    ৪. তাহেরা মাজহার আলী [শান্তি আন্দোলনের কর্মী]
    ৫. মাজহার আলী [সাংবাদিক]
    ৬. আহমেদ সেলিম [কবি]

    মাজহার আলী ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধুর আমন্ত্রণে বাংলাদেশে এসেছিলেন এবং ডন-এ গণহত্যার ওপর ধারাবাহিক নিবন্ধ লিখেছিলেন। এ কারণে তাঁর চাকরি চলে যায়।

    তথ্যসূত্র ১

    ReplyDelete
  2. বলে কোন লাভ নেই হিমু ভাই। রাস্তাঘাটে মুক্তিযোদ্ধারা লাঁথি-গুঁতা খায় সেটা কেউ খেয়াল করে না। অথচ পাকিদের গালি দিলেই আমাদের জাত নষ্ট হয়ে যায়।

    ReplyDelete
  3. পাখাপোমাচু...

    ReplyDelete
  4. ছোঃ, এই তালিকা আগামী কয়েকশ বছরেও পঞ্চাশ পার হবে না।

    ReplyDelete

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।