Thursday, April 01, 2010

শাশ্বতী, আর ... মনে পড়ে রেডকাউ

ছড়ার সতর ঢাকার জন্যে কিছু কথাবার্তা জুড়ে দিতে হচ্ছে। ছড়াটি জনৈক বরাহের সাম্প্রতিক স্মৃতিভ্রংশের অভিনয়ের প্রতিবাদে লেখা। সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ, কিছু "বড়দের শব্দ" আছে। বাকিটা পড়ার জন্যে ঢোকার আগে আবারও ভেবে নিন। বাচ্চাদের পড়তে দেবেন না। তবে বড়দের পড়তে দিতে পারেন। এই আর কি।

একদা এমন বাদল শেষের রাতে
মনে হয় যেন শত জনমের আগে
সে এসে সহসা হাত রেখেছিলো কাঁধে
চেয়েছিলো মুখে সহজিয়া অনুরাগে
সেদিনও এমনই বদর বিলাসী পাকি
মেতেছিলো তার গেলমান রাজাকারে
অনাদি কালের যত চাওয়া, যত পাওয়া
খুঁজেছিলো তার আনত নধর গাঁড়ে
একটি ইয়ের দ্বিধা থরথর চূড়ে
ভর করেছিলো সাতটি অমরাবতী
একটি ঘন্টা তাঁবুতে বেদম খেটে
ঘরে ফিরেছিলো গুলু নিজা কামা মতি।

কিন্তু সেসব বহু অতীতের কথা
শুধালে সহসা পড়ে কি গো আর মনে?
থাক না সেসব মধু সোহাগের স্মৃতি
কেবল মুজার হৃদয়ে, সঙ্গোপনে।

সাংবাদিকের ছানা তবু বারে বারে
ঘ্যান ঘ্যান করে, বলে মনে কি গো পড়ে
করেছিলে কত আকাম কুকাম তুমি
একাত্তরের নয়টি মাহিনা ধরে?

মুজা মাথা নাড়ে, বলে পাস্টের কথা
পাস্টেই থাক, কী লাভ খামাখা ঘেঁটে
পৃথিবীতে সব জাতিকে দ্যাখো না? তারা
সকল অতীত চাপা দেয় কার্পেটে

তবু থামে না তো সাংবাদিকের পোনা
থামে না বেয়াড়া সওয়াল ফল্গুধারা
মনে পড়ে নাকি, মুজা বরাহের হাতে
প্রাণ-মান-ধন হারিয়েছে, ওরা কারা?

মুজা বলে বাবা, বয়স হয়েছে বহু
শৈশব স্মৃতি পড়ে না তো মনে ভালো
ছাত্র ছিলুম, করেছিনু লেখাপড়া
লেখো, মুজা হাতে ছেঁড়েনি একটি বালও

সাংবাদিকের খাতাতে হরেক চোথা
পদে পদে ছাপা মুজা বরাহের গাথা
ছবিসহ ছাপা হয়েছে খবর কত
মুজা ছিলো সেই আলবদরের মাথা

মুজা বলে সব ঝুট হায়, বাবা শোনো
এসব সকলই ডাঁহা বানোয়াট বুলি
রাখো তুলে সব প্যান্ডোরা-সিন্দুকে
তালা মেরে, কেন খামাখা আবার খুলি?

মুজা বরাহের কীর্তি কাগজে ছাপা
পাহাড়প্রমাণ প্রমাণের ঢিবি ঠেলে
মুজা বলে আমি ছিলুম তখন সিধে
সাদামতো এক নিরীহ মাসুম ছেলে

মনে পড়ে শুধু হৃদয় মেলতো পাখা
বাধা সব হতো দূর, আর বলে হিয়া
রেডকাউ ছিলো সব পুষ্টির গোড়া ...
বাকি সব স্মৃতি খেয়েছে অ্যামনেশিয়া।

ওরে মুজা তুই বলিস যা আসে মুখে
কল্পকাহিনী গল্প যা খুশি শোনা
যে ভোলে ভুলুক কোটি মন্বন্তরে
আমি ভুলিবো না, আমি কভু ভুলিবো না!


[]

No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।