Tuesday, February 23, 2010

যুদ্ধাপরাধ বিরোধিতা দিবস

দিবসটিবসের ব্যাপারে আমার উৎসাহ নাই। কিন্তু সেই আমিও এই প্রস্তাব দিচ্ছি।

যুদ্ধাপরাধের বিরোধিতার জন্যে, এ বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির জন্যে, এর পুনরাবৃত্তি ঠেকানোর জন্যে দুনিয়ায় কোনো দিন ঠিক করা হয়েছে কি না জানি না। গুগল মারলাম, কিছুই পেলাম না।

এমন একটা দিন আমাদের প্রয়োজন। আন্তর্জাতিকভাবেই পালন করা প্রয়োজন। খবরের কাগজে পড়লাম, পাকিস্তান প্রচণ্ড কূটনৈতিক তৎপরতা চালাচ্ছে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার পণ্ড করার জন্যে। তাদের মূল উদ্দেশ্য, নিজেদের পাপ ঢাকা।

আমাদের কূটনৈতিক উদ্যোগ নিয়ে কিছু কথা বলে কান্ধের ফেরেস্তার হাতের টনটনানি আর না বাড়াই। কিন্তু পাকিদের মুখের ওপর শক্ত একটা জবাব আমাদের দিতে হবে।

আমরা যুদ্ধাপরাধ বিরোধিতা দিবসকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের মতো করে প্রতিষ্ঠিত করতে কি পারি না? আমার মনে হয় চেষ্টা করলে পারি।

২৮ ফেব্রুয়ারি দিনটিকে আমরা যুদ্ধাপরাধ বিরোধিতা দিবস হিসেবে পালন করতে পারি। ১৯৭১ সালের এই দিনে, পাকিস্তান থেকে পাঠানো সৈন্য ও অস্ত্র বহর বাংলাদেশে এসে পৌঁছায়। প্রত্যেক বছর আমরা পাকিস্তানীদের স্মরণ করিয়ে দিতে পারবো, তারা কী, তারা কী করেছিলো, এবং মানুষের ইতিহাসে তাদের স্থান কোথায়।


[]

No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।