Thursday, December 24, 2009

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের কাছে প্রস্তাব

সম্প্রতি উইকিপিডিয়ায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক বিভিন্ন ভুক্তিযোগের কাজে সচলায়তনের সদস্য, অতিথি ও পাঠকরা এক বিপুল উৎসাহ নিয়ে নেমেছেন।

এর পটভূমি বাস্তব ও ভীতিপ্রদ। যুদ্ধাপরাধীদের পরবর্তী প্রজন্ম ধীরেসুস্থে রয়েসয়ে নিজেদের মনের মাধুরী মিশিয়ে উইকিপিডিয়ায় রচনা করছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস। সে ইতিহাসে শেখ মুজিব অভিযুক্ত বিহারীনিধনের দায়ে, গোলাম আযম নন্দিত তার অ্যাকাডেমিক সাফল্য আর ভাষা আন্দোলনের বীর্যে।

এই মিথ্যাচার রোধে আমাদের যা করণীয়, তা-ই আমরা করছি।

কিন্তু উদ্বেগের সাথে আমরা যা লক্ষ্য করছি, তা হচ্ছে, ইংরেজি উইকিপিডিয়াতে কোনো রেফারেন্স ছাড়া, অথবা ভুয়া অথবা পাঠের জন্যে সুলভ নয়, এমন সব রেফারেন্স দিয়ে নানা বিকৃত তথ্য যুক্ত হচ্ছে। আর প্রকৃত সত্য তথ্য যোগ করতে গিয়ে আমরা মুখোমুখি হচ্ছি তথ্যসূত্র ঘাটতির।

এ অবস্থায়, আমাদের এগিয়ে আসতে হবে তথ্যসূত্র নিয়ে। বাংলায় মুক্তিযুদ্ধের ওপর বিশদ বই রচিত হয়েছে অসংখ্য, কিন্তু ইংরেজিতে কম, এবং যা রচিত হয়েছে তার সিংহভাগই পাকিস্তানী যুদ্ধাপরাধী জেনারেলদের রচিত।

অতএব, এখন আমাদের প্রয়োজন, বাংলায় যেসব বই রয়েছে, সেগুলোকে ইংরেজিতে অনুবাদ করার।

কিন্তু প্রতিটি বইয়ের লেখক এবং প্রকাশকের সাথে আলাদাভাবে যোগাযোগ করে কাজ করার সময় বা সুযোগ আমাদের নেই। সবচেয়ে ভালো হয়, যদি এই কাজটি করে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সংরক্ষণে আমাদের নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর।
.
.
wikijuddho
.
.
লক্ষণীয় যে এই বইগুলো সম্পূর্ণ ইংরেজিতে অনুবাদ করারও প্রয়োজন নেই, নির্দিষ্ট কিছু অংশ ইংরেজিতে অনুবাদ করলেই আমরা অসংখ্য তথ্য চিরকালের জন্যে ইংরেজিতে রেফারেন্স হিসেবে পাবো।

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের কোনো নিয়মিত প্রকাশনা রয়েছে কি না, আমি জানি না। যদি থেকে না থাকে, তবে একটি অনিয়মিত প্রকাশনা শুরু করা যায়, যাতে এই কাজটি ধারাবাহিকভাবে করা হবে। প্রতিটি সংখ্যায় প্রকাশিত হবে নতুন সব অনুবাদকর্ম। মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের প্রকাশনা যে কোনো জায়গায় রেফারেন্স হিসেবে সাদরে গৃহীত হবে। প্রয়োজনে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে এ অনুবাদযজ্ঞ শুরু হবে। সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকা স্বেচ্ছাসেবীরা শুরু করবেন এ কাজ। একজন দক্ষ সম্পাদকের তত্ত্বাবধানে সে অনুবাদকর্ম পুঙ্খানুপুঙ্খরূপে যাচাই বাছাই হয়ে প্রকাশনায় স্থান পাবে।

এই রেফারেন্স আমরা ছড়িয়ে দেবো সব জায়গায়। এই প্রকাশনাগুলোর পিডিএফ সংস্করণ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ওয়েবসাইটে দেয়া থাকবে তথ্যগুলোকে উন্মুক্ত ও সুলভ করার জন্যে।

এ ব্যাপারে একটি ঘণ্টাও বিলম্ব কাম্য নয়। যত দ্রুত সম্ভব ব্যবস্থা নিতে হবে।

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের কোনো কর্তার কাছে এই প্রস্তাব-পোস্টটি যদি কেউ পৌঁছে দিতে পারেন, কৃতজ্ঞ হবো।

বরাহশিকার জারি থাকুক।



আপডেট

No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।