Friday, November 13, 2009

অপূর্ব একটি পরিবেশন


রাগ মান্দ (মাঞ্জ বা মাঁড় নামেও অভিহিত) রাজস্থান অঞ্চলের পল্লীগীতির ওপর ভিত্তি করে পরিমার্জিত। রুক্ষ শুষ্ক রাজস্থান, যেখানে পুরুষেরা সব যুদ্ধবিগ্রহে পদাতিকের দলে নামে, যারা কখনো নিজেদের রাজাকে চোখে দেখার সুযোগও হয়তো পায় না। দূর দূর দেশে রক্তটুকু সম্বল করে তারা যুদ্ধ শেষে হয়তো ফিরে আসে, কিংবা আসে না। নিজেদের নারীদের চোখে তারা কেশরী (সিংহ)। প্রোষিতভর্তৃকা নারী বেলা শেষের ছায়ায়, সায়াহ্নে, যখন ঘরে ফেরার কথা সঙ্গীর, কিন্তু সে ফেরে না, তখন বিষণ্ণ, তীব্র কণ্ঠে গান ধরে নিজের পুরুষের কথা স্মরণ করে। ঘর ছেড়ে যুদ্ধে যাওয়া পুরুষের সংখ্যা যেহেতু কম নয়, কম নয় তাদের ফেলে আসা নারীদের সংখ্যাও, তাই সেই গানে কণ্ঠ যোগ হয়, সেই গান হয়ে ওঠে বৃন্দ পরিবেশন। মান্দ রাগে তাই সেই বিরহকাতরতাটুকুই মুখ্য, যে বিরহ মোচনের জন্যে নানা প্রতিশ্রুতির আভাস মেলে সুর আর কথায়।

নজরুল তাঁর "উচাটন মন ঘরে রয় না" গানটিতে মান্দের কোমল, ক্রন্দনভারাক্রান্ত একটি রূপ ফুটিয়ে তুলেছেন। তবে মান্দের সবচেয়ে পরিচিত, পরিস্ফূট রূপটি বোধহয় "কেসারিয়া বালাম আওগে, পাধারো মারো দেস" (হে প্রিয়, কেশরী, আমার আঙিনায় এসো) গানটিতেই।

অতিথি সচল অনিন্দ্য রহমানের সৌজন্যে এ গানটির একটি অভিনব পরিবেশনপেলাম ইউটিউবের কল্যাণে। এমবেড অপশন নিষ্ক্রিয় করা বলে এমবেড করা গেলো না।

দেখুন, শিল্পীদের অভিব্যক্তি। রোগা, হাড় জিরজিরে এক একজন মানুষ, কোটরগত চোখ, শ্রমক্লিষ্ট এক একটি মুখ। পেছনে দেয়ালে ঝাড়ু হাতে ইঁট গাঁথছেন এক প্রৌঢ়, ছাগল চরে বেড়াচ্ছে উঠোনে, গানের মাঝে ছুটে এসে ঢোল হাতে বসছেন একজন, গ্রাম্য বালকেরাও যোগ দিয়েছে এই বৃন্দ পরিবেশনে। কিন্তু কী তীব্র তাদের সকলের কণ্ঠ! একটি ক্ষুদে জনপদ যেন সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সমবেত হয়ে তারা ডুবে যাবে মান্দে। তাদের কণ্ঠই কেবল নয়, গাইছে তাদের সমস্ত শরীর। প্রত্যেকটি মানুষই যেন এক একটি গানের স্তবক সেখানে।

আমাদের দেশে গানের আসরগুলি খুব বেশি দেখার অভিজ্ঞতা হয়নি আমার। কিন্তু যতবারই দেখেছি, শরীর কণ্টকিত হয়েছে। শিল্পীরা এক একজন কী মগ্ন হয়ে যান সঙ্গীতে, সে দৃশ্য বর্ণনার অতীত। আমার অনুরোধ থাকবে আপনাদের কাছে, যদি সুযোগ পান, চলমান ক্যামেরায় এমন আসরের দৃশ্যগুলি ধারণ করবেন। ইউটিউব আছে নাহলে কোন কাজে?


2 comments:

  1. Himu,
    anek dhonyobad ei video ti share korbar jonye. ami apnar lekhar niyomito pathok , tabe alosyo probol haoaye montobyo likhe otha hoy na.ebare ganer guntoy (:D) likhei fellam.dhonyabadante - dip

    ReplyDelete

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।