Friday, May 29, 2009

জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানের কি বিদেশী প্রতিষ্ঠানের দেশীয় প্রতিনিধি হবার অধিকার আছে?

বাংলাদেশের ভূমি ব্যবহার করে আসামের গেরিলাবাহিনী উলফার জন্যে ১০ ট্রাক অস্ত্র পাচারের ঘটনার তদন্ত চলছে, চুনোপুঁটি থেকে শুরু করে রাঘব বোয়াল সবাইকে ধরে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে এখন।

রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান এনএসআই-এর তৎকালীন প্রধান ব্রিগেডিয়ার (অব) রহিম আদালতের কাছে স্বীকারোক্তিতে বলেছেন, তিনি এনএসআইয়ের প্রধান হিসেবে কর্মরত অবস্থায় সস্ত্রীক দুবাই গিয়ে এআরওয়াই নামে একটি দুবাইভিত্তিক পাকিস্তানী প্রতিষ্ঠানের এআরওয়াই ও কিউটিভি নামে দু'টি টেলিভিশন চ্যানেলের বাংলাদেশ প্রতিনিধি হবার ব্যাপারে আলোচনা করেছিলেন।

এআরওয়াই আইএসআইয়ের কাভার সংস্থা কি না, উইং কমান্ডার সাহাবউদ্দিনের ভাষ্যমতে পাকিস্তান হাইকমিশন এই অস্ত্রপাচারের সাথে জড়িত কি না, তা নিয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তাগণ ঘাঁটাঘাঁটি করবেন। আমি বিস্মিত, রাষ্ট্রের অতি গুরুত্বপূর্ণ পদে কর্মরত একজন কর্তা কিভাবে বিদেশী একটি প্রতিষ্ঠানের দেশীয় প্রতিনিধি (একটি লাভজনক পদ) হবার আশা পোষণ করতে পারেন, তা জেনে। আমি যতদূর জানি, রাষ্ট্রের কোন কর্মচারী সে দায়িত্ব পালনকালে অন্য কোন প্রতিষ্ঠানে লাভজনক পদে দায়িত্ব পালন করতে পারে না।

দুইদিন পর হয়তো দেখবো, অন্য কোন বাহিনীর প্রধান মহোদয় ডিসকভারি চ্যানেলের দেশীয় এজেন্সি হস্তগত করতে অন্য দেশে ছুটছেন। কিংবা কোন সচিব দপ্তরে বসে ইএসপিএনে খেলা দেখতে দেখতে হঠাৎ একদিন তিন দিনের ট্যুরে যাবেন এর স্থানীয় এজেন্ট হতে। আমাদের সরকারের কর্তাদের জন্য কি কোন রুলস অব বিজনেস প্রযোজ্য নয়? নাকি তাঁরা এগুলোকে আদৌ পোঁছেন না?

বিরোধী দলীয় নেত্রীর ওপর গ্রেনেড হামলা হয়, দেশের ৬৪ জেলায় একসঙ্গে বোমা ফাটে, বিডিআরে সশস্ত্র অভ্যুত্থান ঘটে, গোয়েন্দারা কিছুই জানতে পারেন না। এর কি একটা কারণ এমন হতে পারে, যে তাদের দপ্তরের প্রধানেরা শুধু টেলিভিশন দেখেন আর সরকারের খরচে অন্য দেশে ভ্রমণ করতে যান বিদেশী প্রতিষ্ঠানের দেশীয় এজেন্ট হবার আগ্রহ নিয়ে?

টিভির নেশা বড় খারাপ।

[]

No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।