Thursday, March 12, 2009

সত্যবাদী কূটনীতিক?

আমরা নানাদিক থেকে আক্রান্ত একটি দুর্ভাগা জাতি। একটা সময় ছিলো যখন আমরা কম্বোডিয়া থেকে শ্রীলঙ্কা পর্যন্ত রাজনৈতিক কর্তৃত্ব বিস্তারের চেষ্টা করেছিলাম। একটা সময় ছিলো যখন আমাদের জাহাজগুলো আবিসিনিয়া পর্যন্ত বাণিজ্যে ব্যস্ত ছিলো। সেসব সময় গত হয়েছে। আমরা পরের গোলায় ধান আর পরের ঝাঁকায় মাছ তুলতে তুলতে, কামলা খাটতে খাটতে পরিপূর্ণ একটি কামলা জাতিতে পরিণত হয়েছি। সেদিন বোধহয় আর বেশি দূরে নয় যখন লেবাননের মতো বাংলাদেশেরও সিংহভাগ মানুষ বাস করবে বাংলাদেশের বাইরে।

রেমিট্যান্সের ওপর টিকে থাকার পরও দুধ দেয়া গাইয়ের যত্ন আমরা করি না। বরং গাইটিকে মাঝে মাঝে বুঙ্গি বাজিয়ে জ্বালাতন করি। যারা এই দেশটিকে ত্যাগ করে ভিন দেশে প্রতিকূল পরিবেশে কাজ করে দেশে টাকা পাঠান, তাদের সম্ভাব্য সবরকম উপায়ে ইসেমারার জন্য আমরা নানারকম ব্যবস্থা করে রেখেছি। দেশত্যাগের আগে তারা নানারকম সরকারী বেসরকারী অসহযোগিতার মুখে তো পড়েনই, দেশে ফেরার মুখেও ইমিগ্রেশনে নানাভাবে নাজেহাল হন। আর বিদেশে বাংলাদেশের দূতাবাসগুলোতেও নাকি শ্রমিকদের কোন রকম সহযোগিতা মেলে না। আমরা খবরের কাগজে মাঝে মাঝেই পড়ি, বিভিন্ন দেশের বাংলাদেশ দূতাবাসের বাইরে বাংলাদেশী শ্রমিকদের বিক্ষোভ। কুয়েত থেকে পিটিয়ে এমন শতাধিক শ্রমিককে বার করে দিয়েছে সে দেশের পেটোয়া বাহিনী, রক্তাক্ত জামা নিয়ে দেশে ফিরে তারা হাউমাউ করে কেঁদেছেন। আমরা পরের পৃষ্ঠায় গিয়ে বহির্বিশ্বের খবর পড়েছি তারপর। গাই কানলে আমার কী?

আজ খবরের কাগজে পড়লাম আর বিবিসিতে শুনলাম ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার এর বরাতে, মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাই কমিশনের শ্রম কাউন্সেলর জনাব তালাত মাহমুদ খান মালয়েশিয়ার সাংবাদিকদের সাথে এক অন্তরঙ্গ সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, কিভাবে অর্থনৈতিক মন্দায় ভোগা সত্ত্বেও মালয়েশিয়া বাংলাদেশ থেকে ৭০ হাজার শ্রমিক আমদানি করবে। মিডিয়া এ বক্তব্য ছাপাতে দেরি করেনি। ফলস্বরুপ ৫৫ হাজার ভিসা বাতিল করেছে মালয়েশিয়া সরকার।

জনাবে আলা কাউন্সেলর বাংলাদেশি মিডিয়াকে বলেছেন, তাঁর সাক্ষাৎকারটি মালয়েশিয় মিডিয়া নেতিবাচকভাবে ছাপিয়েছে।

এটি কি খুব স্বাভাবিক নয়? যে তথ্যটি তিনি দিলেন, সেটি পেয়ে মালয়েশিয় মিডিয়ার কি খুব আহ্লাদিত হওয়ার কোন কারণ আছে? মালয়েশিয় মেয়েরা নাকি বাংলাদেশী পুরুষ শ্রমিকদের প্রতি রীতিমতো যৌন আকর্ষণ অনুভব করে, এ কারণে মালয়েশিয়া সরকার পর্যন্ত আগে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে [পড়ুন এখানে]। এমনিতেই মালয়েশিয়ার সাথে বাংলাদেশের শ্রমিক আমদানি-রপ্তানির ব্যাপারে আগে একাধিকবার গন্ডগোল হয়েছে, বিশ্বব্যাপী এই মন্দার সময় এমন একটি তথ্য মিডিয়াকে সেধে যুগিয়ে দেয়ার পরিণতি যিনি আন্দাজ করতে পারেন না, তাকে তো মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাই কমিশনের শ্রম কাউন্সেলর হিসেবে কাজ দেয়ার কথা নয়। তবে কি জেনে বুঝেই তিনি এই কাজটি করেছেন? এ ঘটনার সাথে কি সদ্য প্রাক্তন হাইকমিশনার মেজর [অব] খায়রুজ্জামানকে ঢাকায় ঢাকায় প্রত্যাহার করে নেয়ার কোন সম্পর্ক রয়েছে? তালাত মাহমুদ খানের এই নাইভটে সম্পর্কে অনুসন্ধান কি আশা করা যায়?

ইংরেজিতে গাভীকে ষাঁড় দিয়ে গর্ভবতী করানোকে বলা হয়, TO SERVICE A COW। কিন্তু এ-ও মনে রাখা উচিত যে বলদ দিয়ে সার্ভিসিং হয় না। আমাদের অর্থনীতির দুধ দেয়া গাইকে সার্ভিস দেয়ার ব্যাপারে দক্ষ জনশক্তি নিয়োগের ব্যাপারে পররাষ্ট্র ও শ্রম মন্ত্রণালয়ের আন্তরিক হওয়া জরুরি বলে আমার মনে হয়।

[]

No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।