Tuesday, December 30, 2008

এ বিজয় আওয়ামী লীগের নয়, এ পরাজয় মুক্তিযোদ্ধাহন্তারকগোষ্ঠীর

১.
আওয়ামী লীগের উল্লসিত হবার মতো কোন কারণ নেই। এ বিজয় মহাজোটের নয়। এ পরাজয় মুক্তিযোদ্ধাহন্তারকদের। এ পরাজয় তাদের, যারা আলী আমানের পিঠ লাথি মেরেছে এই সেদিন, যারা মুক্তিযোদ্ধা সেনাদের মিথ্যা বিদ্রোহের অভিযোগ ফাঁসি দিয়ে গুলি করে পিটিয়ে মেরে হত্যা করেছে একত্রিশ বছর আগে, আর লক্ষ লক্ষ মানুষকে হত্যার কাজে প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ ও সহায়তা করেছে সাঁইত্রিশ বছর আগে। তাদের মুখে জুতার বাড়ি দিয়েছে বাংলাদেশের মানুষ।

২.
আওয়ামী লীগের উল্লসিত হবার কারণ নেই কারণ জোটে তাদের সাথে রয়েছে বিশ্ববেহায়া এরশাদ, যে লোকটি আশির দশক ধরে বাংলাদেশের প্রায় সব প্রতিষ্ঠানকে সকলের চোখের সামনে ধর্ষণ করেছে, যাকে মানুষ জুতিয়ে নামিয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে ফেলেছে বলে একটি ভুল ধারণা নিয়ে খুশি হয়েছিলো আজ থেকে আঠারো বছর আগে।

৩.
আওয়ামী লীগের উল্লসিত হবার কারণ নেই, কারণ এককভাবে নির্বাচন করে আজ থেকে বারো বছর আগে ক্ষমতায় পাঁচটি বছর কাটিয়েও তারা বাংলাদেশকে সাঁইত্রিশ বছর আগের জন্মলগ্নের চেতনার পথে পরিচালিত করতে পারেনি। বরং তাদের দলের ভেতরে বেড়ে উঠেছিলো জয়নাল হাজারী, শামীম ওসমান, আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহর মতো লোকজন।

৪.
আওয়ামী লীগের উল্লসিত হবার কারণ নেই, কারণ দেশের শত্রু, বাংলাদেশের মানুষের শত্রু যে গোষ্ঠীটি, সেই রাজাকার-আলবদর-জামাতকে তারা আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিতে শোচনীয় ব্যর্থতার, এবং কখনো কখনো নিস্পৃহার পরিচয় দিয়েছে।

৫.
আওয়ামী লীগের উল্লসিত হবার কোন কারণ নেই, কারণ তাদের সামনে রয়েছে সেই গোষ্ঠীটিকে দমন করে বাংলাদেশকে এই দুই হাজার নয় খ্রিষ্টাব্দের পৃথিবীর সাথে তাল মেলানোর, এই দুই হাজার নয় খ্রিষ্টাব্দের পৃথিবীতে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে টিকিয়ে রাখার শেষ সুযোগ। এই সুযোগ তারা আর কখনোই পাবে না।

৬.
শেখ হাসিনা কি জানেন এ কথা?

[]

No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।