Tuesday, October 21, 2008

আসুন সব কিছু মাদ্রাসার মাপে বানাই

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আটটি বিভাগে ভর্তির পূর্বশর্ত হচ্ছে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে মোট আটশো নম্বরের পরীক্ষায় নির্দিষ্ট একটি সীমার ওপরে নম্বর (এখন গ্রেড) পেতে হবে। মাদ্রাসা ছাত্ররা এর প্রতিবাদে উপাচার্যের কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুর করেছে।

মাদ্রাসা ছাত্রদের নিয়ে কুম্ভীরাশ্রুবর্ষণও শুরু হয়েছে আবার। তাঁদের দুর্দশা ও পুঞ্জীভূত ক্ষোভ প্রশমনের জন্যে অনেকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে আহ্বান জানাচ্ছেন নিয়মটি শিথিল করে মাদ্রাসার ছাত্রদের ভর্তি পরীক্ষার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়ার জন্যে।

এই আপাত নিরীহ ও মহান আহ্বানের পেছনের স্বতসিদ্ধটি কূট। এতে মনে হতে পারে, কেবল মাদ্রাসা ছাত্রদের ঠেকিয়ে রাখতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভাগগুলি ঐ কুকর্ম করেছে। মাদ্রাসা ছাত্রদের জীবনের দুর্দশা এবং তাঁদের মননে বিরাজমান ক্ষোভের জন্যে আসলে দায়ী বিশ্ববিদ্যালয়গুলিই। তাদের পেজোমির জন্যেই মাদ্রাসার ছাত্ররা মূলধারার শিক্ষা ও প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে তাঁদের জীবন গড়তে পারছেন না।

অথচ তাঁরা যা পড়ছেন মাদ্রাসায়, তার আধুনিকীকরণ নিয়ে কোন সাড়াশব্দ নেই কারো মুখে। বিভাগগুলি চাইছে বাংলা ও ইংরেজি, পাঠকার্যক্রম চালানোর জন্যে এই দুই ভাষায় ন্যূনতম ব্যুৎপত্তি। সেই শর্তটি যাঁরা পূরণ করতে পারছেন না, তাঁরা কিন্তু নিজেদের শিক্ষাকাঠামোকে প্রশ্ন করছেন না, বলছেন না তাঁদের শিক্ষাকার্যক্রমে বাংলা ও ইংরেজির অংশ বাড়ানোর কথা। মই বেয়ে তাঁরা ওপরে উঠবেন না, ফলসহ গাছের ডাল নুইয়ে তাঁদের নাগালের ভেতরে এনে দিতে হবে।

এখন দেখা যাচ্ছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভাগগুলি তাদের পাঠকার্যক্রম চালিয়ে নেয়ার জন্যে ছাত্রের ন্যূনতম যোগ্যতা নির্ধারণের অধিকার হারিয়ে ফেলার পর্যায়ে আছে। কওমী মাদ্রাসার মোদাররেসরা তা ঠিক করে দেবেন। দুইদিন পর হয়তো তাঁরা প্রধান উপদেষ্টার কার্যালয়ে ঢুকেও ভাংচুর করবেন, অসহায় প্রধান উপদেষ্টার ফোনকল পেয়ে তেজগাঁ থানার ওসি হাই তুলতে তুলতে আসবেন, যেভাবে শাহবাগ থানার ওসি আক্রান্ত উপাচার্যকে উদ্ধার করতে এসেছেন হেলেদুলে।

কুম্ভীরাশ্রুবর্ষকদের উদ্দেশ্যে তাই আহ্বান, আসুন সবকিছু মাদ্রাসার মাপে বানাই। মাদ্রাসা ছাত্রদের অনুমোদন না নিয়ে বাংলাদেশে যেন ভবিষ্যতে আর কোন কিছু করা না হয়। মাদ্রাসার আধুনিকীকরণ প্রয়োজন নেই, আসুন আধুনিকতার মাদ্রাসীকরণ করি।

[]

No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।