Monday, June 23, 2008

ফুটোস্কোপিক গল্প ০০৯

ফুটোস্কোপিক গল্প হচ্ছে ফুটোস্কোপ দিয়ে দেখা গল্প। সামান্যই দেখা যায়।


: ... তারপর কী হোলো?

: তারপর নায়িকা দৌড়াতে লাগলো।

: নায়িকা দৌড়াতে লাগলো কেন?

: ভিলেন যে ছুটছে পেছন পেছন?

:ভিলেন পেছন পেছন ছুটছে কেন?

:ভিলেন নায়িকাকে বিয়ে করতে চায়।

: ভিলেন নায়িকাকে বিয়ে করতে চায় কেন?

: নায়িকা দেখতে বেশ সুন্দর তো, তাই।

:নায়িকা দেখতে কেমন সুন্দর?

: মমমম, কেমন সুন্দর? পাশের বাড়ির কচি আন্টির মতো সুন্দর। পাতলি কমরিয়া, তিরছি নজরিয়া। ইয়াম ইয়াম।

: তাহলে নায়িকা ছুটছে কেন?

: সে তো ভিলেনকে বিয়ে করতে চায় না।

: সে ভিলেনকে বিয়ে করতে চায় না কেন?

: ভিলেনের গোঁফ আছে, তাই।

: ভিলেনের গোঁফ আছে কেন?

: মাথায় টাক যে? মাথায় চুল নেই বলে গোঁফ রেখেছে।

: মাথায় টাক কেন?

: ভিলেন যখন ছেলেবেলায় গোসল করতো, তখন ভিলেনের আম্মু ভিলেনের মাথায় শ্যাম্পু দিতে গেলে ভিলেন চেঁচাতো। মাথায় ঠিকমতো শ্যাম্পু করতে দিতো না। তাই টাক।

: চেঁচাতো কেন?

: ভিলেন যে! কোন ভালো কাজ তার পছন্দ নয়।

: তাহলে ভিলেন নায়িকার পেছন পেছন দৌড়াচ্ছে কেন?

: ভুঁড়ি আছে যে?

: ভুঁড়ি আছে কেন?

: ভিলেনদের ভুঁড়ি থাকতে হয়।

: ভুঁড়ি থাকতে হয় কেন?

: খাওয়াদাওয়া করে তো অনেক, তাই।

: খাওয়াদাওয়া করে কেন?

: না হলে নায়কের মার সহ্য করবে কিভাবে?

: নায়ক ভিলেনকে মারবে কেন?

: বা রে, নায়কের নায়িকার পেছনে ভিলেন দৌড়ালে নায়ক তাকে পেটাবে না?

: নায়ক তাহলে ভিলেনকে মারে না কেন?

: নায়ক তো বাড়িতে, ঘুমুচ্ছে।

: নায়ক ঘুমায় কেন?

: বা রে, নায়কের খাটনি আছে না? নায়িকার সাথে নাচতে হয়, ভিলেনের সাথে মারপিট করতে হয়, নায়িকার বাবার সাথে ঝগড়া করতে হয়। অনেক কাজ বেচারার। এতসব শেষ করে যদি একটু ঘুমাতে না পারে, তাহলে কিভাবে হবে?

: নায়িকার বাবার সাথে ঝগড়া করতে হয় কেন?

: নায়িকার বাবা চায় না নায়ক নায়িকার সাথে নাচুক।

: চায় না কেন?

: হিংসুটে একটা লোক তো, তাই।

: হিংসুটে কেন?

: নায়িকার বাবারা একটু হিংসুটেই হয়।

: তারপর কী হলো?

: নায়িকা ছুটতে লাগলো। ভিলেনও ছুটতে লাগলো পেছন পেছন।

: তারপর কী হলো?

: তারপর নায়িকা একটা পাহাড়ের কিনারায় গিয়ে পৌঁছালো। আর তার পেছনে ভিলেন। সামনে বিরাট খাদ।

: তারপর?

: ভিলেন বললো, মুহাহাহাহাহা! বলো সুন্দরী, কোন কমিউনিটি সেন্টারে তোমার বৌভাত হবে?

: নায়িকা কী বললো তখন?

: নায়িকা বললো, বাঁচাও, বাঁচাও!

: তারপর কী হলো?

: ভিলেন বললো, কেউ তোমাকে বাঁচাতে আসবে না নায়িকা! এখানে শুধু তুমি আর আমি! আর একটু পর আসবেন কাজী সাহেব আর আমার দুই সাক্ষী লালু আর ভুলু।

: কাজী সাহেব কে?

: কাজী সাহেব বিয়ে দেন।

: লালু আর ভুলু কে?

: ওরা দু'জন ভিলেনের সাগরেদ।

: ওরা আসবে কেন?

: ওরা সাক্ষী দিতে আসবে।

: সাক্ষী কী?

: মমমম। বিয়ে তো একা একা করা যায় না। লোকজনকে দেখিয়ে করতে হয়। যাদেরকে দেখিয়ে বিয়ে করতে হয়, তারাই সাক্ষী?

: তারপর কী হলো?

: নায়িকা পা হড়কে পড়ে গেলো।

: তারপর?

: ভিলেন লাফিয়ে গিয়ে নায়িকার হাত ধরে ফেললো।

: নায়িকা পড়ে গেলো নিচে?

: উঁহু। ভিলেন তো তার হাত ধরে আছে। আর নায়িকা ঝুলছে ভিলেনের হাত থেকে। নিচে খাদ। অনেক নিচে।

: পড়ে গেলে মরে যাবে?

: একদম।

: তারপর কী হলো?

: তারপর? নায়িকা আবার বললো, বাঁচাও বাঁচাও।

: ভিলেন কী বললো?

: ভিলেন বললো, মুহাহাহাহাহা!

: তারপর?

: তারপর নায়িকা বললো, ছেড়ে দে শয়তান!

...


[সমাপ্ত]

1 comment:

  1. এই তো শুনিবে !

    চমৎকার ! টানটান টেনে আনলে, তারপর ' শেষ হইয়াও হইলো না শেষ'
    যথার্থ ছোট গল্প।
    মাল্যবান
    http://malyaban.blogspot.com

    ReplyDelete

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।