Wednesday, November 28, 2007

চাটগাঁইয়া ব্যকরণ

এমএসএনে আলাপ হচ্ছিলো এক বন্ধুর সাথে। বয়সে বড়, তবে এখনো ছেলেমানুষ। কথায় কথায় জানালেন, দেশের অবস্থা ভালো না।

জিজ্ঞেস করলাম, "কীরকম?"

তিনি বললেন, "লোকে ভাষা ভুলে যাচ্ছে। বিদেশী ভাষায় কথা বলে।"

আমি দীর্ঘশ্বাস ফেলি। অনেক কথা বলে ফেলি তারপর। কিভাবে বালিকারা এখন তাদের প্রেমিককে "প্রিয়ে" "নাথ" "হৃদয়বল্লভ" প্রভৃতি না ডেকে "জাআন" ডাকে, কিভাবে প্রেমিক প্রেমিকার মানভঞ্জন না করে তাকে "মানানো"র চেষ্টা করে, কিভাবে মিষ্টিমধুর "সোনা" সম্বোধন "বেয়বেহ"তে পরিণত হয়ে যাচ্ছে, ইত্যাদি ইত্যাদি আরো অনেক ভাষিক পরিবর্তনের আলাপ উঠে আসে।

তিনি বিরক্ত হন। বলেন, "আরে ধুরো মরা! তাতে আমার কী?"

আমি হকচকিয়ে যাই।

তিনি বলেন, "বাংলা ভাষা নিয়ে আমার মাথাব্যথা নাই! আপনি জানেন, চট্টগ্রামের লোক এখন আর চট্টগ্রামের ভাষা বোঝে না?"

আমি হাসি। খুবই স্বাভাবিক। চট্টগ্রামের ভাষা রীতিমতো কঠিন। ফরাসী শিখতে গিয়ে টের পেয়েছি। লিয়াজোঁ জিনিসটা রীতিমতো সেইরকম ঘাপলার। ওয়াহিদুর রহমান যখন অহিদোরঁন হয়ে যায়, তখন একটু সমস্যা তো হবেই।

তিনি আমার হাসির ইমোটিকন দেখে গোস্যা করেন। তারপর খুব গরম গরম কথা বলেন। তার কথা থেকে জানতে পারি, চট্টগ্রামে নাকি কয়েক মাইল ভ্রমণ করলেই শব্দের অর্থ পাল্টে যায়। যেমন, ফুইৎ ন ফাই মানে হচ্ছে সময় পাই না, কিন্তু নদীর এপারে এর অর্থ লোকে ইদানীং বুঝতে পারছে না। খোদ চিটাগাঙেই নাকি এখন লোকে চট্টলার ঐতিহ্যবাহী ভাষা ছেড়ে বাংলা, ডিজুস আর রেডিওটুডের ভাষায় কথা বলা শুরু করেছে। এটা নাকি তাঁরতুনবালান'লার।

আমি ভয়ে ভয়ে প্রস্তাব দিলাম, চট্টগ্রামের ভাষার একটা ব্যকরণ লিখে ফেলতে। অনেকের কাজে দেবে। যারা চাকরি, পড়াশোনা, ভ্রমণ সূত্রে চট্টগ্রামে যান, তাঁরা সাংঘাতিক উপকৃত হবেন।

তিনি ক্ষেপে গেলেন। চিটাগাঙের ভাষার রেজোলিউশন নিয়ে আবারও কথা বললেন কিছুক্ষণ।

আমি বললাম, আপনি জিইসির মোড়কে রেফারেন্স ধরে লিখুন না। বাকিটা কোসাইন সূত্র ধরে বের করে ফেলা যাবে। কস থিটা দিয়ে গুণ করলেই ...।

তিনি এরপর কী কী যেন বলতে লাগলেন চট্টগ্রামের ভাষায়। ভয় পেয়ে বললাম, আচ্ছা শুভরাত্রি।

তবে আমার পরামর্শটা নেহায়েত খারাপ ছিলো না। চিটাগঙের এতো আত্মীয় স্বজন থাকার পরও এ ভাষাটা শুনলে আজো ভ্যাবলার মতো তাকিয়ে থাকি। বয়স হচ্ছে, দুইদিন পর শেখার শক্তি থাকবে না। একটা ভালো ব্যকরণ বইয়ের অভাবে এতো সুন্দরী চট্টলাবাসিনীর সাথে দু'দন্ড নিভৃতালাপের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছি ভাবতেই কান্না পাচ্ছে।

সুধী চাট্টলিক, বিলম্ব নয়। আজই শুরু করুন।


[]

No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।