Monday, July 16, 2007

ভাত দে হারামজাদা, নইলে মানচিত্র খাবো ...


জর্জ ওয়াকার বুশ যখনই দখলকৃত ফিলিস্তিনি ভূমিতে শান্তিস্থাপনের মহাযজ্ঞ নিয়ে রোডম্যাপ কথাটা বলে বসলো, সক্কলে নড়েচড়ে বসে বুঝলো, সামনে কয়েকবছর আর শান্তির দেখা মিলবে না। শান্তির পারাবত বউবাচ্চাসহ কুঠুরি ছেড়ে কোথায় যেন চলে গেলো। শুরু হয়ে গেলো নানা আপদ, সংঘাত, কংক্রীটের বিশাল দেয়াল নির্মাণ, ফিলিস্তিনিদের ঘর ভেঙে বিলাসবহুল ইসরায়েলি প্রাসাদোপম বাড়িঘর নির্মাণ, আত্মঘাতী হামলা, পাল্টা হামলা, হামাস-ফাতাহ দ্বন্দ্ব। খালি বলেন কী বাদ পড়লো। রোডম্যাপ নিয়ে ব্যাপক কান্নাকাটি পড়ে গেলো চারদিকে, বুশ শুধু ক্যামেরার সামনে সাজুগুজু করে আর বলে, উঁহু উঁহু, রোডম্যাপ অনুসরণ করতে হবে।

কাজের সূত্রে আমাকে রোডম্যাপ ব্যবহার করতে হয়েছে কিছুদিন। বেশ কাজের জিনিস, উত্তর দক্ষিণ পূর্ব পশ্চিম চিনে নিতে হয় শুধু। তারপর সব ফকফকা। রোডম্যাপ খুলে আপনি চলে যেতে পারেন গাইবান্ধার সাঘাটা থেকে ঠাকুরগাঁয়ের নেকমরদ, পিরোজপুরের পাথরঘাটা থেকে বরিশালের বানারিপাড়া। মধুমতী, সন্ধ্যা, আত্রাই ... সব ম্যাপের নীলনদী দেখতে পাবেন চোখের সামনে। ম্যাপটা ঠিক হলেই চলে।

এদিকে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়ছে হুহু করে। হুহু বললেও কম বলা হয়। গুঁড়ো দুধের ব্যবসায় কে আঙুল কিভাবে দিলো বোঝা যাচ্ছে না, কিন্তু এ দুধের দাম বাড়ছে কাবুলিঅলার সুদের ওপর সুদের মতো। গরুর মাংসের দাম একবার চারদলীয়জোটের আমলে খামাখাই বেড়ে গেলো ফট করে, খুব বেশিদিন হয়নি যখন নব্বই টাকা কেজি করে কিনতাম এই দারুণগোস্ত, আজ তার মূল্যের পারদ একষো ষাট-সত্তর-আশি। কেন কে জানে। গরু ব্যবসায়ীদের কি আজও চাঁদাবাজির শিকার হতে হয়? এখনও কি সেই রাজনীতিচাটা খানকির পোলারা ঠ্যাক দিয়ে দিয়ে এই গরীব মানুষগুলির কাছ থেকে হাটেমাঠেঘাটে পয়সা আদায় করে করে খুচরা বাজারে দাম বাড়ায়? খুচরা বাজারের নাটকির পোলারা এখনও সাহস পায় দু'টাকার জিনিস কুড়ি টাকায় বেচতে?

সামনে রমজান, কুত্তার বাচ্চারা আবার দাম বাড়াবে। কারা এই কুত্তার বাচ্চা, আমি ঠিক জানি না, কিন্তু দাম এড়াই বাড়ায়। আর একবার দাম বাড়লে বাংলাদেশে কোন জিনিসের দাম কমেছে, এমনটা শোনা যায় না সহজে।

আজ খবরে শুনলাম নির্বাচনের রোডম্যাপের গল্প। জানুয়ারিতে স্থানীয় সরকার নির্বাচন, আর ডিসেম্বরে সংসদ নির্বাচন। ভালো লাগলো শুনে, সকলে নাকি স্বাগত জানিয়েছেন এই রোডম্যাপকে।

আমিও অভিনন্দন জানাই এই মানচিত্রের বিজ্ঞ কার্টোগ্রাফারদের। আমার শিরোনামটা নিছকই একটা কবিতার লাইন, বাস্তবের সাথে এর কোন সম্পর্ক নাই।

No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।