Friday, June 15, 2007

কুর্ট ভাল্ডহাইমের মৃত্যু



কুর্ট ভাল্ডহাইম ৮৮ বছর বয়সে মারা গেছেন গতকাল। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে তাঁর ভূমিকা (বসনিয়ায় ভাল্ডহাইম নাৎসীবাহিনীর একজন সদস্য ছিলেন, কাজ করতেন জেনারেল আলেক্সান্ডার লোয়র এর অধীনে, যাকে ১৯৪৬ সালে যুদ্ধাপরাধী হিসেবে মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়েছিলো) কেউ ভোলেনি। ভাল্ডহাইম তাঁর অতীত সম্পর্কে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে জাতিসংঘের মহাসচিব হয়েছিলেন, হয়েছিলেন অস্ট্রিয়ার প্রেসিডেন্ট, কিন্তু তাঁর অতীত সম্পর্কে তথ্য চাপা দিতে পারেননি। আজ এই মুক্ত তথ্যের পৃথিবীতে তাঁর ওবিচুয়ারি প্লাবিত হয়েছে যুদ্ধাপরাধের রেফারেন্সে। পড়তে পারেন রবার্ট ফিস্কের এই তীব্র প্রতিক্রিয়াটি।

যদিও আন্তর্জাতিক ইতিহাসবিৎ কমিশন ভাল্ডহাইমকে সরাসরি অপরাধের দায় থেকে মুক্তি দিয়েছে, সাইমন ভিজেনঠালের মতো নাৎসীশিকারী তাঁকে ছাড়পত্র দিয়েছেন, কিন্তু এ সম্পর্কে তথ্য গোপনের অভিযোগ ভাল্ডহাইম এড়াতে পারেননি। ১৯৪১ থেকে ১৯৪৫ এর মাঝে ইউগোস্লাভিয়া আর গ্রিসে ভাল্ডহাইমের চোখের সামনেই ঘটে গেছে মানবতার বিরুদ্ধে অনেক নৃশংস অপরাধ, কিন্তু ভাল্ডহাইম বলতে চেয়েছেন তিনি ছিলেন একজন সামান্য করণিক, কিছু্ই জানতেন না এসবের।


ভাল্ডহাইমের অপরাধ ধামাচাপা ছিলো বহুদিন। কিন্তু সত্য প্রকাশিত হয়ে পড়েছে ঠিকই। তবে ভাল্ডহাইম কেবল পারসোনা নন গ্রাতা ঘোষিত কিছু দেশে, আর কোন শাস্তি তাকে ভোগ করতে হয়নি। আমাদের দেশে আমরা প্রকাশ্য সত্যকে একটু একটু করে ধামাচাপা দিতে থাকি। স্বজনের ঘাতকদের আমরা এখনো পারিনি সুষ্ঠ বিচারের মুখোমুখি করতে। গোলাম আজম শাস্তি পায় না এদেশে, মন্ত্রী হয় নিজামী আর মুজাহিদ। এ লজ্জা আমাদের সবাইকে নিজের আয়নায়, মানুষের মাপকাঠিতে পারসোনা নন গ্রাতা করে তোলে।


No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।