Thursday, March 29, 2007

স্বল্পস্মর




এই ভূখন্ডে শেষ কবে মহামারী হয়েছিলো? কত মানুষ মারা গিয়েছিলো তাতে? মোট জনসংখ্যার কত শতাংশের মৃত্যু হয়েছিলো সেই মহামারীতে?

গবেষণা না হোক, বইয়ের ধূলো ঝেড়ে এ প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। অনেকদিন হয়ে গেলো বড় কোন মড়কে আমরা মারা পড়ছি না। গত শতকে বাংলাদেশে বড় মাপের লোকক্ষয় হয়েছে বিশ্বযুদ্ধকালীন দুর্ভিক্ষ, ঘূর্ণিঝড় আর পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর আক্রমণে।

সম্ভবত এ কারণেই আমাদের ভেতরে মড়ক সম্পর্কে সঠিক কোন ধারণা কাজ করছে না। ঘরপোড়া গরু সিঁদুরে মেঘ দেখলে ভয় পায়, যেমন ইন্দোনেশিয়া বা থাইল্যান্ডের লোক এখন ৎসুনামির নাম শুনলেই আঁতকে ওঠে। দীর্ঘদিন ঘরে আগুন না লাগা গরু আগুনের ফুলকি দেখলেও নির্লিপ্ত জাবর কাটে।

আমাদের ইতিহাসবিমুখতা, ইতিহাসবীতস্পৃহা, ইতিহাসনিস্পৃহা আমাদের কোন দিকে ঠেলে নিয়ে যাবে জানি না। প্রাকৃতিক চক্রগুলিকে শনাক্ত করতে না পারার খেসারত দিতে হয়েছে অনেক জাতিকেই, কিন্তু আমাদের মতো ঘনবসতির দেশকে সে খেসারত দিতে হবে আরো অনেক ভয়াবহতা নিয়ে। ভূমিকম্প নিয়ে মাঝে মাঝে মৃদু জগঝম্প বাজানো হয়, তবু অপরিকল্পিতভাবে বেড়ে ওঠে নগর, জলা ভরাট করে নির্মিত হয় প্রাসাদ, আমরা ভুলে যাই গৌড়ের প্রাচীন রাজধানী লক্ষণাবতীর কথা, যা পরিত্যক্ত হয়েছিলো জলাবদ্ধতার কারণে।

ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে বার্ড ফ্লুর হুমকি, আমরা কিভাবে দেখছি এটাকে? আর কত লোক মরলে পরে বলবো মোরা শেষে, বড্ড বেশি মানুষ গেছে বানের জলে ভেসে? ঠেকেই শুধু শিখতে হবে আমাদের?



No comments:

Post a Comment

রয়েসয়েব্লগে মন্তব্য রেখে যাবার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার মন্তব্য মডারেশন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যাবে। এর পীড়া আপনার সাথে আমিও ভাগ করে নিলাম।